Breaking News

ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি-খুলনার নেতৃবৃন্দর সাথে কেসিসি’র ভারপ্রাপ্ত মেয়রের সাক্ষাত

Kcc (24-11-15)খুলনা সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে মঙ্গলবার নগরীতে খান-এ-সবুর রোড লেখা সম্বলিত সাইনবোর্ড অপসারণ, মুছে ফেলা ও অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের লক্ষ্যে ভ্রাম্যমাণ আাদালত পরিচালিত হয়। অভিযান পরিচালনা করেন কেসিসি’র নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট কে এম জহুরুল আলম।

উল্লেখ্য, মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে রীট পিটিশন ৫৫৩১/১২ মামলার আদেশে খুলনা সিটি কর্পোরেশন অধিক্ষেত্রে ‘খান এ সবুর রোড’ নামের স্থালে ‘যশোর রোড’ লেখা বা ব্যবহারের জন্য আদেশ প্রদান করেন। উক্ত আদেশ বাস্তবায়নের জন্য খুলনা সিটি কর্পোরেশন স্থানীয় পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি, সম্মানিত ব্যবসায়ীদের নোটিশ, গণবিজ্ঞপ্তি, মাইকিং এবং সরকারি আধাসরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে পত্র প্রদানসহ খুলনা সিটি কর্পোরেশন স্বউদ্যোগে ‘খান এ সবুর রোড’ লেখা মুছে দেয়া হয়েছে। এরপরও কিছু কিছু সাইনবোর্ডে আদালতের আদেশ অমান্য করে খান-এ-সবুর রোড লেখা রয়েছে। এ সকল সাইনবোর্ড মালিকদের সাইনবোর্ডে যশোর রোড প্রতিস্থাপন করার জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে। অন্যথায় মহামান্য আদালতের আদেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এগিকে মঙ্গলবার দুপুরে নগরীর যশোর রোডে বিদ্যমান সাইনবোর্ড ও ব্যানার থেকে ‘খান-এ-সবুর’ নাম মুছে দেয়ার দাবিতে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি-খুলনার নেতৃবৃন্দ নগর ভবনে কেসিসি’র ভারপ্রাপ্ত মেয়র মোঃ আনিছুর রহমান বিশ্বাষ-এর সাথে সাক্ষাত করেন। ভারপ্রাপ্ত মেয়র মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের আদেশ কেসিসি কর্তৃপক্ষ যথাযথভাবে পালন করছে বলে তাদের অবহিত করেন। এ সময় কেসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা গোকুল কৃষ্ণ ঘোষ, খুলনা প্রেস ক্লাবের সভাপতি মকবুল হোসেন মিন্টু, সাধারণ সম্পাদক সুবীর কুমার রায়, সাংবাদিক গৌরাঙ্গ নন্দী, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কর্মকর্তা ডা. বাহারুল আলম, রফিকুল ইসলাম খোকন, শ্যামল সিংহ রায়, খালিদ হোসেন, হুমায়ুন কবীর ববি, মিজানুর রহমান বাবু, মহেন্দ্র নাথ সেন, মহিদুল ইসলাম, সমীর কুমার দাস, সাংবাদিক শেখ হেদায়েতুল্লাহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *